আজ বুধবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২১ ইং

সংকটের মধ্যেও চড়া রডের বাজার

বিশেষ প্রতিনিধি।    |    ০২:৩১ পিএম, ২০২০-১২-১৯



সংকটের মধ্যেও চড়া রডের বাজার

আন্তর্জাতিক বাজারে নভেম্বর থেকে বৃদ্ধি পাওয়া স্ক্র্যাপের মূল্য এখনো কমেনি। উল্টো বেড়ে গেছে রড তৈরির কেমিক্যালের দামও। বর্তমানে রড তৈরিতে টন প্রতি কেমিক্যালের অতিরিক্ত খরচ বেড়েছে প্রায় ১০ হাজার টাকা। এতে সমস্যায় পড়েছেন এই খাতের উদ্যোক্তারা।

উদ্যোক্তারা জানান, করোনা শুরুর আগে জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি মাসে রডের মূল্য ছিল টন প্রতি গড়ে ৬০ হাজার টাকা। করোনা সংক্রমণের পর রডের মূল্য টন প্রতি ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা কমে যায়। ওই সময়ে প্রতি টন রড বিক্রি হয় ৫১ থেকে ৫৪ হাজার টাকা। বাজারে জুন-জুলাই পর্যন্ত রডের এ দাম অব্যাহত ছিল। পরবর্তীতে আগস্ট থেকে রডের মূল্য ধীরে ধীরে বৃদ্ধি পেতে থাকে। 

একই সাথে বাড়তে থাকে রডের চাহিদাও। কিন্তু সেপ্টেম্বর থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে বেড়ে যায় স্ক্র্যাপের দাম। তা এখনো অব্যাহত রয়েছে। এ কারণে বেড়ে যায় রডের মূল্যও। মূলত স্ক্র্যাপ সংকট ও মূল্য বৃদ্ধি এবং কেমিক্যালের অতিরিক্ত খরচের কারণে রডের দাম বেড়ে যায়। বর্তমানে দেশিয় বাজারে রড বিক্রি হচ্ছে টন প্রতি ৫৯ হাজার থেকে ৬৪ হাজার টাকা।

বাংলাদেশ স্টিল ম্যানুফেকচারিং এসোসিয়েশনের (বিএসএমএ) তথ্য মতে, বিশ্বের প্রায় অর্ধশত দেশ থেকে কনটেইনারে ও পুরো জাহাজ বোঝাই করে রড তৈরির কাঁচামাল হিসেবে স্ক্র্যাপ আমদানি করা হয়। বিশেষ করে আমেরিকা, ইউরোপ, অষ্ট্রেলিয়া, জাপান, ল্যাতিন আমেরিকা, দক্ষিণ আফ্রিকা, ব্রাজিল, নেদারল্যান্ডস ও মালয়েশিয়া থেকে পুরোনো লোহার টুকরা আমদানি হয় বেশি। কিন্তু করোনার কারণে ইউরোপ-আমেরিকার দেশগুলোতে পুরোনো অবকাঠামো ভেঙে নতুন অবকাঠামো তৈরির কাজে ধীরগতি দেখা দেওয়ায় রড তৈরির কাঁচামালের সরবরাহ কমে যায়।

আবার অনেক দেশ করোনা সামলে নতুন করে অবকাঠামো উন্নয়নে জোর দিয়েছে। তাতে ঘাটতি প্রকট আকার ধারণ করেছে। এরমধ্যে নতুন করে সংকট বাড়িয়ে দিয়েছে বিশ্বের শীর্ষ ইস্পাত উৎপাদনকারী দেশ চীন। দেশটিতে বিগত কয়েক বছর ধরে স্ক্র্যাপ আমদানি বন্ধ ছিল। কিন্তু দেশটি এ বছর থেকে পুনরায় স্ক্র্যাপ আমদানি শুরু করলে বিশ্ব বাজারে নতুন করে সংকট তৈরি হয়। বেড়ে যায় রডের দাম। 

এ কারণে আন্তর্জাতিক বাজারে স্ক্র্যাপের দাম ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। অক্টোবরে আন্তর্জাতিক বাজারে স্ক্র্যাপের মূল্য ছিল টন প্রতি ৩১০ থেকে ৩১৫ ডলার। বর্তমানে সেটি বিক্রি হচ্ছে প্রায় ৪৫০ ডলার। তাও স্ক্র্যাপের জন্য অর্ডার নেওয়া হলেও শিপমেন্ট হচ্ছে বিলম্বে। বর্তমানে আন্তর্জাতিক বাজারে যারা স্ক্র্যাপের অর্ডার নিচ্ছে তারা মাল শিপমেন্ট করবে ফেব্রুয়ারিতে। 

এ শর্ত মেনেই স্ক্র্যাপ বিক্রির অর্ডার নিচ্ছে রপ্তানিকারকরা। একই সাথে দেশিয় বাজারেও স্ক্র্যাপের মূল্য বেড়ে গেছে। আগস্ট-সেপ্টেম্বর মাসে প্রতি টন স্ক্র্যাপ বিক্রি হয়েছিল ৩৪ হাজার টাকা। বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ৩৮ হাজার টাকা। এ কারণে নিরুপায় হয়ে স্ক্র্যাপের অর্ডার করছেন বাংলাদেশি উদ্যোক্তারা।

উদ্যোক্তারা জানান, সহজে কাঁচামাল না পাওয়াই এখন মূল সংকট। উৎপাদন চালু রাখতে যা-ই পাওয়া যাচ্ছে, তার জন্যই এখন বুকিং দিচ্ছেন এই খাতের উদ্যোক্তারা। উৎপাদন খরচ বাড়লে বাড়তি চাপ তৈরি হবে এই খাতে।

বাংলাদেশ স্টিল ম্যানুফেকচারিং এসোসিয়েশনের (বিএসএমএ) তথ্য মতে, সারাদেশে বার্ষিক রডের চাহিদা ৭০ লাখ মেট্রিক টন। কিন্তু সারাদেশের ফ্যাক্টরিগুলোতে উৎপাদনের ক্ষমতা রয়েছে আরো বেশি। প্রায় ৮৫ লাখ মেট্রিক টন। দেশে যে পরিমাণ রড উৎপাদন হয়, তার ৮০ শতাংশই উৎপাদন হয় চট্টগ্রামে। 

এরমধ্যে জিপিএইচ ইস্পাত ৮ লাখ ৪০ হাজার মেট্রিক টন, বিএসআরএম  ৪ লাখ মেট্রিক টন, আবুল খায়ের ৪ লাখ মেট্রিক টন, কেএসআরএম ৩ লাখ মেট্রিক টন এবং গোল্ডেন ইস্পাত, শীতলপুর, সীমা   স্টিল, আরএসআরএম ও বায়েজিদ স্টিল তৈরি করে প্রায় ১০ লাখ মেট্রিক টন।  উৎপাদিত রডের ৬০ শতাংশ ব্যবহার হয় সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে। বেসরকারি কাজে ব্যবহার হয় অবশিষ্ট ৪০ শতাংশ।

বাংলাদেশে মোট ইস্পাত কারখানা রয়েছে ২৩৫টি। এরমধ্যে ৩৬টি সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয় (অটোমেটিক)। ১৯৯টি সনাতনী রি-রোলিং মিল। রড তৈরির কাঁচামালের মধ্যে ৭০ শতাংশ আমদানি নির্ভর। অবশিষ্ট ৩০ শতাংশ দেশিয় শিপব্রেকিং  থেকে যোগান দেওয়া হয়।

এ প্রসঙ্গে মোস্তাফা হাকিম গ্রুপের পরিচালক মোহাম্মদ সরোয়ার আলম বলেন, ‘বর্তমানে রড তৈরিতে টন প্রতি কেমিক্যালের অতিরিক্ত খরচ বেড়েছে প্রায় ১০ হাজার টাকা। এতে সমস্যায় পড়েছেন এই খাতের উদ্যোক্তারা। একই সাথে সহজে কাঁচামাল না পাওয়ায় এখন ইস্পাত শিল্পে মূল সংকট তৈরি হয়েছে। 

তাই উৎপাদন চালু রাখতে যা-ই পাওয়া যাচ্ছে, তার জন্যই এখন বুকিং দিচ্ছেন এই খাতের উদ্যোক্তারা। উৎপাদন খরচ বাড়লে বাড়তি চাপ তৈরি হবে এই খাতে’।

রিলেটেড নিউজ

কমেছে পেঁয়াজ ও সবজির দাম

কমেছে পেঁয়াজ ও সবজির দাম

নিজস্ব প্রতিবেদক। : চট্টগ্রামের বাজারে সপ্তাহের ব্যবধানে দাম বেড়েছে চিনি ও ভোজ্যতেলের দাম। তবে দাম কমেছে সবজি ও...বিস্তারিত


অতীতের রেকর্ড ভেঙেছে সয়াবিন তেলের দাম

অতীতের রেকর্ড ভেঙেছে সয়াবিন তেলের দাম

চট্টগ্রাম নিউজ ডটকম । : অতীতের রেকর্ড ভেঙেছে বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম। এক লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি হচ্ছে ১৩৫...বিস্তারিত


আলুতে স্বস্তি, তেলে আগুন

আলুতে স্বস্তি, তেলে আগুন

চট্টগ্রাম নিউজ ডটকম । : বাঙালি মানেই খাদ্যরসিক। আর খাবারের প্রতি ভালোবাসা যেখানে, সেখানে বাজারে যাওয়ার প্রতি টান থাকবে...বিস্তারিত


করোনার বছরেও কোটিপতির সংখ্যা বাড়লো

করোনার বছরেও কোটিপতির সংখ্যা বাড়লো

বিশেষ প্রতিনিধি। : বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো’র (বিবিএস) তথ্যমতে করোনা মহামারিতে দেশে মানুষের আয় কমেছে ২০ শতাংশ।...বিস্তারিত


পাঁচ মাসে বাজেট বাস্তবায়ন ২০ শতাংশের নিচে

পাঁচ মাসে বাজেট বাস্তবায়ন ২০ শতাংশের নিচে

বিশেষ প্রতিনিধি। : চলমান করোনার অভিঘাতের মধ্যেই চলতি অর্থবছরের (২০২০-২১) জন্য ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা...বিস্তারিত


চাল এবং তেলের দামে অস্বস্তি: সবজিতে স্বস্তি

চাল এবং তেলের দামে অস্বস্তি: সবজিতে স্বস্তি

স্টাফ রিপোর্টার । : বাজারে বেড়েই চলেছে চালের দর। এক সপ্তাহের ব্যবধানে ৬০ টাকার মিনিকেটের দাম বেড়েছে কেজিতে দুই টাকা।...বিস্তারিত


সর্বপঠিত খবর

কাউন্সিলর জসিমের বাসায় এমপি দিদার অবরুদ্ধ

কাউন্সিলর জসিমের বাসায় এমপি দিদার অবরুদ্ধ

স্টাফ রিপোর্টার । : চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) নির্বাচনে বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী জহুরুল আলম জসিমের বাসায়...বিস্তারিত


চসিকে তিন মেয়র প্রার্থীর হলফনামায় যার যত সম্পদ!

চসিকে তিন মেয়র প্রার্থীর হলফনামায় যার যত সম্পদ!

শাহরিয়ার মুনির জিসান, স্টাফ রিপোর্টার। : চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম...বিস্তারিত